অটোয়া, শনিবার ১৭ আগস্ট, ২০১৯
রোহিঙ্গা হত্যার প্রতিবাদে অটোয়ায় সমাবেশ

 

আশ্রম রিপোর্টঃ "আমার বয়স ১০ বছর, আমি আমার দেশে ভালই ছিলাম। রোজ মাদ্রাসায় যাইতাম, ইচ্ছা ছিল পবিত্র কোরান মুখস্থ করবো, কিন্তু হল না। এইদিন রাতে হঠাৎ করেই আমাদের বাড়ীতে মিলিটারি আসে, ঘরের বাহির থেকে এলোপাতাড়ি গুলি ছোড়া শুরু করে। একটি গুলি আমার পিতার মাথায় লাগে। ভয়ে আমার কান্না চলে আসে, আমি কাঁদতে থাকি। একপর্যায়ে আমরা বাবাকে রেখেই ঘর থেকে বের হয়ে জঙ্গলে চলে আসি। জঙ্গল থেকে দেখতে পাই আমাদের ঘরে আগুন লাগিয়ে দিয়েছে। ঘর দাউ দাউ করে জ্বলছে। বাবা ঘরে পড়ে আছেন। আগুন দেওয়া ঘরে…"
অদ্য ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৭ কানাডার রাজধানী অটোয়ার পার্লামেন্টের সামনে মায়ানমারে ‘মুসলিম রোহিঙ্গা’ হত্যার প্রতিবাদে আয়োজিত সমাবেশে রোহিঙ্গা কানাডিয়ান রইস গত সপ্তাহে বাংলাদেশে শরণার্থী হিসেবে আশ্রয় নেওয়া ছোট শিশু নূর কাজলের এই হৃদয়স্পর্শী কাহিনীটি বর্ণনা করেন। ‘অটোয়া মুসলিম কমিউনিটি’ আজকের এই সমাবেশটির আয়োজন করে। দুপুর দুটো থেকে চারটা পর্যন্ত আয়োজিত এই সমাবেশে রইস আহমেদ ছাড়াও কানাডার পার্লামেন্ট সদস্য, এমেনেস্টি ইন্টান্যাশন্যাল এর প্রতিনিধিসহ মুসলিম কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন। সবাই মায়ানমারে এই জাতিগত হত্যার তীব্র প্রতিবাদ করেন। তারা আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় বিশেষ করে কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোকে এই নৃশংস হত্যার বিরুদ্ধে বলিষ্ট ভূমিকা রাখার আহবান জানান। উল্লেখ্য যে, গত ২৫ আগস্ট রাখাইনে মায়ানমার সরকারের সেনাবাহিনী নির্মম হত্যাযজ্ঞ শুরু করে। এই হত্যাযজ্ঞের কারণে সীমান্ত পাড়ি দিয়ে বাংলাদেশে লাখ লাখ শরণার্থী আশ্রয় নিচ্ছে…  

অটোয়া, কানাডা