অটোয়া, শনিবার ২১ মে, ২০২২
একগুচ্ছ কবিতা – রফিকুল নাজিম

সহজাত
খাঁচা ভেঙে উড়াল পাখি
খুঁজে পেলে সুনীল আকাশ,
খাঁচার মালিক যতই ডাকুক
পালক পেলে উতল বাতাস...

আর কি পাখি ফিরে খাঁচায়,
আর কি পাখি গান শোনায়?
খাঁচার মালিক দরোজা খুলে
যতই বুকটা পাতুক মায়ায়...

সেই পাখিটা আকাশ জুড়ে
মুক্ত ডানায় ভীষণ উড়ে,
খাঁচার মালিক ঝাপসা চোখে
পাখিটা খুঁজে আকাশ জুড়ে।

নত হও
ঘৃণার বারুদ ঘষে ঘষে
আগুন দিলে বুকে,
সেই আগুনে পুড়ছে বিশ্ব
মানুষ মরছে ধুঁকে। 

ধর্মের ধোঁয়ায় করছো শিকার
ঈশ্বরকে ঠকাও নিজে,
হাসছেন ঈশ্বর-ভাবছেন বসে
বোকা তোমরা কিযে!

থামো মানুষ, নত হও আরো
প্রার্থনায় বসো এবার,
হিংসাদ্বেষ ভুলে জাগো প্রেমে
প্রেমিক হও রে সবার।

মাটি
আকাশের ঐ গাঁয়ে-মেঘেদের বাড়ি
মেঘে মেঘের নৃত্য -বিজলির আড়ি,
আকাশটা রেগে গিয়ে মেঘকে বলে,
'বিতাড়িত হ রে তুই-বৃষ্টির জলে।'

মাটি শুনে বলে,'ওহে মেঘের দল,
বুকেতে পুষি আমি ব্যথার অনল।
নেমে এসো তবে-ঢালো যত জল
আমার বুকে আছে সায়র অতল!'

বিতাড়িত বৃষ্টি ঝরে মাটির ঐ বুকে
জলে জলে থাকে জল জলজ সুখে,
পৃথিবীর তরুলতা পশুপাখি কু'জন
মাটিতে দাঁড়ায় সব-মাটিতেই গোপন!

রফিকুল নাজিম। নরসিংদী, বাংলাদেশ