অটোয়া, শুক্রবার ২০ মে, ২০২২
আবদুস সালাম-এর কবিতা

হুমকি
রীরে জ্বলছে আগুন
মারণ রোগ বাসা বেঁধেছে শরীরে
মৃত্যু অনিবার্য জেনে ও ডাক্তার ওষুধ লেখে
বিষফোঁড়া বেরিয়ে আসে অজান্তে

ভালোবাসা দাঁড়িয়ে আছে পরিচয়হীন স্টেশনে
নিমপাতায় নেমেছে অন্ধকার
পশ্চাৎগামী অবক্ষয় আত্মবিলাপে মগ্ন
অবেলায়  মগ্নহাহাকার ডানা মেলে
ঝিমিয়ে পড়ে শরীরী ব‍্যাঞ্জনা করে

এ শরীর আমার নয়
আমার জ্বলনের  তাপ পাড়া জুড়ে

দৈববাণীর মতো মাইকে ভেসে আসছে
এ শরীর তোমার নয় অন্য শরীর ধরো ---

অসময়
তোমার সংসারে নেমে আসে প্রভাত
স্নিগ্ধ  শালুক পুকুর ,অচেনা পাখির ডাক

আমার বাড়িতে আসেনা পারুল দিদি
সর্বত্র প্রবেশ নিষেধের বিজ্ঞাপন
দাঁড়িয়ে আছি, পাশে ফনিমনশার বন
মানবতার পাথরে চাপা আর্তনাদ শুনতে পাই
আড়াল হয়ে যায় বাসনার নির্জীব চাঁদ

দ্বিধা হীন স্বপ্নরা ঘুমিয়ে পড়ে
পরাজয় গর্জে ওঠে বারবার

ঢেউয়ের শীৎকারে ঝরে পড়ে  নির্বাক পরামর্শ

বিষাদ ঝরে পড়ে
হাহাকার বুনি বিশ্বাসের  মাটিতে
সীমানা জেগে ওঠে অচেনা গ্রামের
ঈশ্বর ধর্মের নিকোটিন খায়
মেঘ ডেকে যায় মানবিক মাঠে

মানুষ নিয়ে মানুষ খেলা করে
রক্তে ভেসে যায় পার্থিব‍্য উঠোন
প্র শ্ন ছুঁড়ে দিই আকাশে
তলোয়ার হয়ে হাওয়ায় উড়ছে সেই নিশান

অন্ধকারে খুলে যায় পোশাক
উল্টো ধারাপাতের গল্প শুনি
উল্লাসের বাজনা বেজে ওঠে সামুদ্রিক পাঠশালায়
বিষাদ ঝরে পড়ে মনুষ্য বাগানে

আবদুস সালাম
রঘুনাথগঞ্জ, মুর্শিদাবাদ 
পশ্চিমবঙ্গ, ভারত