অটোয়া, শুক্রবার ২০ মে, ২০২২
সাবালক জলের ঢেউ - মুতাকব্বির মাসুদ

সাবালক জলের ঢেউ বানের পানিতে খেলে
বানভাসি লাল মোরগের দল 
ডুবে আর ভাসে
ভাসান পানির ক্ষিপ্ত স্রোত কাল সাপিনীর ফনা
মরে মরুক মড়ক লেগে নরকে 
যাক দলিত যত
ঈশ্বর কী আর থাকে বলো বানের জলে?

হলুদ বনের সবুজ যত 
আলোর নেশায় মরণ গিলে
সবুজ আজ পণ করেছে আর যাবেনা হলুদ বনে
নদী যাবেনা মোহনার খুঁজে
বানের জলে ভেসে যাবে মন চায় যেখানে ; তাতে কী? পরিবেশ ব্যাপারী এলান করেছে 
সবুজ হারাবেনা ছন্দ
তবে কোননা কোনসময় মরণকুঞ্জে 
ঈশ্বর আসবেই, 
আসবেই চিনে নিতে বানে ভাসা 
সোহাগীর ধবল শরীর!

আজ আর এখানে বন সবুজের ঠোঁটে 
উদ্ধৃত হবেনা কোন গীতিকবিতা 
উচ্চারিত হবেনা সবুজের নোলকে 
শিশিরের ফোঁটায় স্বদেশের রূপের বন্দনা 
হয়তো একদিন আলোর খরায় 
বিষের তৃষ্ণার ফাঁদে 
মরণ পাখা গজাবে দূর বনে 
কিংবা নদীর দুঃশাসনে হারাবে প্রাণ 
নিরীহ পিঁপড়া-ঠোঁটে নিয়ে একটুকরো সবুজ

তবুও বুদ্ধিমান খাটাসের দল 
নিতম্ব উঁচিয়ে নৃত্য করবে 
তথাকথিত ঈশ্বরের মন্দিরে
কারণ তাঁরা  রাতের আঁধারে 
গেলাসে গেলাসে সবুজ গিলে খায়
রাক্ষুসে আঁধারে-রাতের জঠরে বসে
ওরা ক্রমাগত লাল-সবুজের বিপন্ন
মানচিত্রটাও চিবিয়ে চিবিয়ে খায়।

মুতাকব্বির মাসুদ
শ্রীমঙ্গল, বাংলাদেশ