অটোয়া, শনিবার ২১ মে, ২০২২
তারপর অন্তর বাহির - লাবণ্য কান্তা

তারপর একটি সুন্দর বিকেল, 
তারপর একটুকু বিষণ্ণ হাওয়া; 
তারপর আস্তে নেমে আসা সন্ধ্যা ...
তারপর ধীরে ধীরে নেমে আসা রাত।

তারপর ঝিলিমিলি আলোছায়ায় 
একটু একটু করে আকাশের সঙ্গে মিতালি।
তারপর! তারপর ... তারপর? হ্যাঁ, তারপর ... 
তারপর গাছের ফাঁকে  
ত্রয়োদশীর চাঁদের আলোর সঙ্গে কথাকলি।

তারপর, কোনো বইইয়ের অক্ষরে নিমগ্ন হওয়া।
তারপর,কবিতা পড়া।
তারপর, বাবার কথা মনে করে কান্না করা।
তারপর, মায়ের জন্য মন কেমন করা।
তারপর, তারপর আর কি? জীবন তো এমনি চক্রকার।

আচ্ছা তুমি এমন কেন?
কেমন?
কি করেছি?
এইযে এতগুলো তারপরের সব উত্তর দিয়ে দিলে?

তুমি এমন কেন? এতগুলো তারপর জুড়ে দিলে?
আমি তো ঠাট্টা করেছি, ভাবলাম __ 
দেখি তুমি কতগুলো তারপরের উত্তর দিতে পারো!
এই তারপর বিষয়টা খুব সহজ।
জীবনটা কিন্তু বড় বেশি কঠিন।যতগুলো তারপরের উত্তর দিলাম
তারও রয়েছে অনেক গভীর মৌন মহিমা।
এই যে জীবনের বেদ, এইযে তারপরের তারপর,
এইখানে এসে মিশে গেছে সব আপন পর; পড়ে থাকে
শুধু চলার পথ, আকাশের নীল, আর থাকে অন্তর বাহির।

লাবণ্য কান্তা। ঢাকা