অটোয়া, শনিবার ২১ মে, ২০২২
এম আর তানভীর-এর কবিতা

জ্যোৎস্না রাতে
ড়ো ওড়ো হাওয়া
দুরু দুরু মন,
জ্যোৎস্না রাতে মনে পড়ে
স্মৃতির কথন।

হঠাৎ অজানা পরিবেশে
অচেনা কোন পথে,
দেখা হয়েছিল তোমার সাথে
সেই স্বপ্ন আজ চোখে ভাসে।

কোন এক রোদ্দুর বিকেলে
দেখেছিলাম হলদে রোদে,
তুমি হেটে চলেছো
আঁকাবাঁকা পথে।

সেদিন তুমি বসেছিলে সবুজ ঘাসে
কেউ ছিলনা তোমার সাথে,
আমি আগন্তুক সেজে
দাড়িয়েছিলাম তোমার পাশে।

সেদিন তুমি ছিলে অসহায়ের মতো
বুকেতে ছিল ভয়,
না জানি সেই আগন্তুক
তোমাকে করবে অপহরণ।

তারপর হল একে অপরের পরিচয়
সেই থেকে পথচলা শুরু,
হঠাৎ না বলে কি কারণে?
তুমি চলে গেলে বহুদূরে।

জ্যোৎস্না রাতের আকাশে
জোনাকিরা খেলা করে,
সেই রাতে তোমার কথা
বারবার মনে পড়ে।

অভিমান
তুমি অভিমান করে
যখন নীরব হয়ে থাকো
আমার চোখ দুটো
বর্ষার মতো ভিজে।

নীল আকাশের চাঁদ মাঝে মাঝে
ঘোমটা পড়ে অভিমান করে
সোনালী সূর্যোদয়ের সাথে,
তাই বলে কি অভিমান
চিরদিন থাকে।

তোমার অভিমান
সে তো নয় শুধু অভিমান,
আমার মনের আড়ালে বসত করে
চিৎকার আর হাহাকার।

তুমি অভিমানি তাই বলে
আমি নিঃস্ব,
তুমি অভিমানি বলে
আমার হৃদয়ের জানালায়
আজ বেদনার হাতছানি।

তোমার একটু অভিমান
আমার হৃদয়ে শত কষ্টের বসবাস,
তুমি অভিমান করে বসে থাকলে
আমি কেমন করে
সুদিনের স্বপ্ন দেখি বলো।

জানি তুমি মন থেকে
কখনো অভিমান করো না?
আমি পথ চেয়ে বসে আছি
তুমি অভিমান ভেঙ্গে
আবারো চেনা পথে ফিরে আসবে।

এম আর তানভীর। সিলেট