অটোয়া, শনিবার ২১ মে, ২০২২
শিক্ষা - চিরঞ্জীব নাদ

ন্ধু, কাল পর্যন্ত অপরিচিত;
আজ পাশাপাশি, হসপিটালের বেডে।
আমার ক্যান্সারের লাস্ট স্টেজ,
তোমার বাইপাস সার্জারীর তরে।।

বন্ধু, তুমি নিঃস্ব গরীব তবুও;
তোমার প্রতি – কেন হিংসে জাগে….?
আমি কোটিপতি নিঃস্ব আজি,
তুমি ধনী – বিধাতার ভাগ্য বলে।।

তোমার ছেলে মেয়েরা পড়েছে –
গ্রামের ভাঙ্গা চোরা স্কুলে।
আমার ছেলে মেয়েরা শহরের নামী
ইংরেজী মিডিয়াম স্কুলে বিলংড করে।।

সারা জীবন তোমার সংসার
চলেছে নুনে, পান্তা ভাতে।
তবু তোমার সন্তানেরা বন্ধু,
তোমার জন্য – ভিটে মাটি বেঁচে।।

ছুটেছি আমি সারাটা জীবন,
টাকা আর বস্তু সুখের পিছে।
অগাধ টাকা, গাড়ি, বাড়ি………
তাহলে, লাগছে কেন আজ সব মিছে।।

ভাবছো তুমি, সন্তানেরা দুঃখী বড়ই
আমাকে হারানোর দুঃখে, ভয়ে।
তবে, শোনো তুমি কান পেতে,
কারা যেন সম্পত্তির হিসেব নিকেষ কষে।।

তোমার স্ত্রী, সন্তানের চোখে জল,
ঈশ্বরের কাছে প্রাণ ভিক্ষা করে।
আমার ছেলে মেয়েদের কাছে—
এসব ব্যাপার, জাস্ট সীন ক্রিয়েট।।

বৈভবের জীবন আর পুঁথিগত বিদ্যা,
বুঝেছি, এসব সবেই বৃথা।
প্রেম, কর্তব্যের শিক্ষা বিনা,
মানবের আছে শুধুই যান্ত্রিকতা।।

চাইনা অর্থ, গাড়ি, বাড়ি……..
এরূপ স্ত্রী, সন্তান সুখ পেলে।
বুঝেছি মনুষ্যত্বের শিক্ষা ছাড়া,
সন্তানেরা সত্যিকারের মানুষ নাহি গড়ে।।

চিরঞ্জীব নাদ। শিলিগুড়ি