অটোয়া, শনিবার ২১ মে, ২০২২
প্রতীক্ষা - প্রদ্যোৎ সেন

স্তুবিহীন বাস্তবতা
সোনার হরিণ সবই মিছে
আমরা তবু হন্যে হয়ে
ঘুরে মরি তারই পিছে।   

যার ইশারায় বস্তু জগৎ
রূপে রূপে উঠছে হেসে
ধরা ছোঁয়ার বাইরে থেকে 
দিচ্ছে দেখা নতুন বেশে।

দুপুর যখন শেষ হয়ে যায় 
আঙিনার ওই প্রান্ত দেশে
লাল হলুদের পোশাক পরে
কৃষ্ণকলি ওঠে হেসে।  

চোখের সামনে ছিল সে তো 
চোখ পড়েনি কোনোকালে
হঠাৎ যেন উদয় হলো 
মিষ্টি হাসির তুফান তুলে।

সকালবেলায় কাছে গিয়ে 
কারও দেখা পাইনে খুঁজে 
পাঁপড়িগুলো শুকিয়ে যেন 
ভয়ে আছে চক্ষূ বুঁজে।

আবার দেখি শেষ দুপুরে
হেসে সবাই কুটিকুটি
কার পরশে আবার যেন
রঙিন বেশে উঠছে ফুটি।

অবাক হয়ে চেয়ে থাকি
তারই দেখা পাবার আশে 
ইঙ্গিতে যাঁর বিশ্বভুবন
নিত্য সাজে নতুন বেশে।

হঠাৎ যেন শিউরে উঠি
পাখি ওড়ার শব্দ শুনি
ভাবি, বুঝি ওই এলো সেই
প্রতীক্ষায় যার প্রহর গুনি।

প্রদ্যোৎ সেন। বাংলাদেশ