অটোয়া, বুধবার ২৮ জুলাই, ২০২১
বাংলাদেশে “বঙ্গবন্ধু পিয়ারে ট্র্রুডো কৃষি গবেষণা কেন্দ্র” স্থাপনের উদ্যোগ - সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

 কৃষি ক্ষেত্রে উন্নততর গবেষণা, বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তন সহনশীল খাদ্য নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত কল্পে গবেষণা কর্মকাণ্ড পরিচালনায় বাংলাদেশে ‘বঙ্গবন্ধু পিয়ারে ট্র্রুডো কৃষি গবেষণা কেন্দ্র’ স্থাপিত হতে যাচ্ছে। পাশাপাশি কানাডার সাস্কাচুয়ান বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনস্থ Global Institute For Food Security (GIFS) এ বঙ্গবন্ধু গবেষণা চেয়ার স্থাপনের ও উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এর ফলে বাংলাদেশ কানাডার মাঝে বিদ্যমান বাণিজ্যিক, গবেষণা কার্যক্রম পরিচালনা, প্রযুক্তি বিনিময়, উন্নয়ন সহায়তা বৃদ্ধি পাবে। অটোয়াস্থ বাংলাদেশ হাইকমিশন হতে বাংলাদেশের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর জন্ম শতবার্ষিকী পালনের বিভিন্ন কর্মসূচির অংশ হিসেবে, জাতির পিতার নামে কানাডার উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গবেষণা চেয়ার স্থাপন এবং কানাডার সহযোগিতায় বাংলাদেশে একটি গবেষণা প্রতিষ্ঠান স্থাপনের উদ্যোগ নেয়া হয়। ইতোপূর্বে সেপ্টেম্বর ২০১৯ মাসে সাস্কাচুয়ান এ অনুষ্ঠিত একটি উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকে হাইকমিশনার জনাব মিজানুর রহমান অংশগ্রহন করেন এবং সে বৈঠকেই হাইকমিশনের তরফ থেকে কেন্দ্রটির নামকরন “বঙ্গবন্ধু-পিয়ারে ট্র্রুডো কৃষি গবেষণা কেন্দ্র” করার প্রস্তাব করা হয়। 
     উল্লেখ্য, সাস্কাচুয়ান প্রদেশের কৃষিমন্ত্রী জনাব ডেভিড মেরিট (Mr. David Marit) গত ফেব্রুয়ারি মাসে বাংলাদেশ ভ্রমন কালে GIFS এবং বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিল (BARC) এর মাঝে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়। এই সমঝোতা স্মারকের ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশে কানাডা-বাংলাদেশ সরকারের যৌথ উদ্যোগে কৃষি ক্ষেত্রে উন্নয়ন, খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করন ও পরিবেশ বিপর্যয় মোকাবেলা করার কাজে এই গবেষণা প্রতিষ্ঠান স্থাপনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।
     কৃষি গবেষণা কেন্দ্রটি স্থাপনের বিষয়ে সার্বিক অগ্রগতি সম্পর্কে আলোচনার জন্য গত ৯ নভেম্বর ২০২০ তারিখ বাংলাদেশ হাইকমিশন অটোয়া একটি ভার্চুয়াল বৈঠকের আয়োজন করে। বৈঠকে কানাডার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, কৃষি মন্ত্রণালয়, International Development Research Center(IDRC), GIFS, এবং বাংলাদেশ কৃষি মন্ত্রণালয়ের উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তাগণ অংশগ্রহণ করেন। বৈঠকে কানাডার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দক্ষিণ এশিয়া বিভাগের মহাপরিচালক জনাব ডেভিড হার্টম্যান জানান যে কানাডার প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর উক্ত গবেষণা প্রতিষ্ঠানের নামকরন “বঙ্গবন্ধু-পিয়ারে ট্র্রুডো কৃষি গবেষণা কেন্দ্র” করার নীতিগত সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেছে। তিনি উভয় দেশের বিভিন্ন ক্ষেত্রে সম্পর্ক উন্নয়নের বিষয়ে কানাডা সরকারের আগ্রহ পুনঃব্যক্ত করেন। কানাডার কৃষি মন্ত্রণালয়ের (Agriculture and Agri-Food Canada) উপমন্ত্রী জনাব ক্রিস ফোর্বস উভয় দেশের মধ্যে কৃষি গবেষণা এবং কৃষি জাত পণ্যের বাণিজ্য বৃদ্ধির আগ্রহ প্রকাশ করেন। বাংলাদেশের কৃষি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ডঃ আব্দুর রউফ, BARC এর Executive Chairman ডঃ এস. এম. বখতিয়ার, বাংলাদেশের বঙ্গবন্ধু কৃষি বিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ডঃ গিয়াসউদ্দিন মিয়া, GIFS এর Chief Executive Officer Dr. Steven Webb, Strategic Partnership বিভাগের Director Mr. Steve Visscher, কানাডার IDRC এর Climate Resilient Food System দপ্তরের পরিচালক Mr. Santiago Alba Corral বঙ্গবন্ধু পিয়ারে ট্র্রুডো কৃষি গবেষণা কেন্দ্র স্থাপনের প্রেক্ষাপট, কর্মকাণ্ড, গুরুত্ব এবং ভবিষ্যৎ কর্ম পরিকল্পনা তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন। হাইকমিশনার জনাব মিজানুর রহমান তার বক্তব্যে বাংলাদেশ-কানাডার মাঝে সাম্প্রতিক সময়ে রাজনৈতিক, বাণিজ্যিক, গবেষণা সহযোগিতা এবং জনসাধারণের মাঝে যোগাযোগ বৃদ্ধি ইত্যাদি ক্ষেত্রে ক্রমবর্ধমান সম্পর্কের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন। জাতির পিতার জন্ম শতবার্ষিকী পালনে হাইকমিশনের কর্মকাণ্ডের সফলতার অংশ হিসাবে এই কৃষি গবেষণা কেন্দ্রটির নামকরণ এবং সাস্কাচুয়ান বিশ্ববিদ্যালয়ে বঙ্গবন্ধু গবেষণা চেয়ার স্থাপনের সিদ্ধান্তের জন্য সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জানান। এই কৃষি গবেষণা কেন্দ্রটি বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তনের প্রেক্ষাপটে খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করা, কৃষি ক্ষেত্রে উন্নততর গবেষণা পরিচালনা, বাংলাদেশে উন্নত প্রযুক্তির বিনিময় এবং বাংলাদেশের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে কেন্দ্রটি বিশেষ ভুমিকা পালন করবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন। এই গবেষণা কেন্দ্র স্থাপনের মাধ্যমে পরবর্তিতে উভয় দেশের বাণিজ্যিক সম্পর্ক বৃদ্ধি এবং কানাডা হতে বাংলাদেশে বৈদেশিক বিনিয়োগ বৃদ্ধি পাবে বলে তিনি উল্লেখ করেন। উল্লেখ্য এই প্রথম কানাডা সরকারের সরাসরি সহযোগিতা এবং অর্থায়নে এ ধরনের গবেষণা কেন্দ্র স্থাপিত হচ্ছে। বাংলাদেশ হাইকমিশনের মিনিস্টার ও দুতালয় প্রধান, মিয়া মোঃ মাইনুল কবির উক্ত আলোচনা অনুষ্ঠানটির সঞ্চালনা করেন। 

প্রেরকঃ 
মিয়া মোঃ মাইনুল কবির
মিনিস্টার ও দুতালয় প্রধান
বাংলাদেশ হাইকমিশন, অটোয়া