অটোয়া, বৃহস্পতিবার ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১
রাতের কড়চা - সিদ্দিকা ফেরদৌস তরু

মার রুমটা ঠিক রাস্তার পাশে 
সারাদিন সারারাত টুংটাং শব্দ। 
কখনো বা পায়ের আওয়াজে মনটি হয় ব্যাকুল,
কারো কারো কর্কশ ধ্বনি মন থাকেনা অনুকূল। 
ললনারা চলে দল বেঁধে মিষ্টি মিষ্টি বচনে, 
এভাবে কখন তারা পৌঁছে যায় সুখের নিকেতনে। 
রাত বাড়তে থাকে গহীন অন্ধকার
দুই একটা পশুর শোনা যায় হুংকার। 
আজ রাতটা যেন কেমন আতংক শান্ত নিরবতা, 
হয়তো শুনতে পাব কাউকে শাস্তি দিবে বিধানদাতা।
হঠাৎ কানে ভেসে এলো নিরবতা ভেঙে
কোন এক নারীর হ্নদয় ভাঙা আর্তনাদ, 
পতির ক্রোধে তার তনু হল ক্ষত-বিক্ষত। 
জানালার গরাদের ফাঁকে দেই উঁকি, 
বুকটা ছাৎ করে মনে জাগে ভীতি। 
হায় ললনা তুমি যাদের বেঁধেছিলে
আদর ভালোবাসার বন্ধনে,
তারাই তোমায় ভাসিয়ে দিলো দুঃখের দহনে।
আমি যেন কত রাতের শত ঘটনার সাক্ষী,
মনের মাঝে উড়াই সুখদুঃখের বৈজয়ন্তী। 

সিদ্দিকা ফেরদৌস তরু
গাইবান্ধা, বাংলাদেশ