অটোয়া, সোমবার ২৩ মে, ২০২২
খোরশেদ আলম এর দুটি ছড়া

আকাশ থেকে বৃষ্টি এলো
নু তানু খোকা বাবু আয়-রে সবাই আয়-
আকাশ থেকে বৃষ্টি এলো সোনার নুপুর পায়।

বৃষ্টি এলো ভিজবো সবাই করবো নাচানাচি
মেঘের সাথে বলবো কথা খেলবো কানামাছি।

ঝিরিঝিরি বৃষ্টি বহে মাদল বাঁজায় ঢোল
বৃষ্টি এলো বৃষ্টি এলো কি-যে খুশির বোল!

অনু তানু খোকা বাবু ভিজবে মনের সুখে
বৃষ্টি কনা চুম দিয়ে যায় সব শিশুদের মুখে।

আকাশ থেকে বৃষ্টি এলো সঙে এলো বান
বাদলা দিনে রুপার দানা টাপুর টুপুর গান।

মুষল ধারায় বৃষ্টি কনা আচড়ে পড়ে গায়
ছলাৎ ছলাৎ নৃত্য করে লাগে সোনা পায়।

পাখির জীবন
পাখি-রে ও পাখি, তোর জীবন বড় সোজা
আমার কাছে এ জীবন পাহাড় সম বোঝা।
নেই যে কোন চিন্তা মনে আকাশ পানে উড়িস
ডানা মেলে নীল আকাশে যখন যেথায় ঘুরিস।

ইচ্ছে হলে যখন তখন যেতে পারিস উড়ে-
দেখতে পারিস আকাশটারে আপন মনে ঘুরে।
তোর মনে কত সুখ পাখি, আমার মনে জ্বালা
তোর মিষ্টি মধুর গানের সুর মন করে উতলা।

থাকত যদি দু’টো ডানা শুনতাম না মানা
মুক্ত আকাশ হত আমার আপন ঠিকানা।
কিচিরমিচির সুর লহরী মন করে চঞ্চল
পাখি-রে তুই পাখি নয়, উড়ন্ত বাউল।

মুক্ত আকাশ তোর ঠিকানা, সুখের সারা-ভুবন
ভালো হতো আমার যদি, হতো পাখির জীবন।
স্বাধীন চেতা পাখি-রে তোর জীবন ভাবনাহীন
আমার জীবন সাদা-কালো তোর জীবন রংগীন।

মনের সুখে গাছের ডালে করিস নাচা-নাচি-
আমার জীবন নয়-রে স্বাধীন, কষ্ট করে বাঁচি।
আমি থাকি গৃহ মাঝে তুই গাছের ডালে
গাছের পাতা চুম দেয় তোর মিষ্টি গালে।

খোরশেদ আলম
ডেমরা, ঢাকা