অটোয়া, সোমবার ২৩ মে, ২০২২
কমলা চিলের চোখ - মুতাকাব্বির মাসুদ

খুজলি ওঠা ছত্রাকের মতো লাল ইটের আঁচল ঘেঁষে 
মৃত নক্ষত্রের দল রুপোলী রোদের জলে 
ধ্রুপদ গাখানা মেলে ধরে
বিদগ্ধ গোধূলি সোনালি  টিয়ার ক্লান্ত ঠোঁটে  
আগুনে পোড়া রোদন নিয়ে খেলে
বিনম্র-লাজুক নদী বুনোহাঁসের কুমারী পালকে
নিজেকে সমর্পণ করে যুবতীর অনঘ নিঃশ্বাসের মতো
অন্ধ গলির ধারে সন্ধ্যার অনল শরীর  
ঘোমটার আড়ালে সন্ধ্যার চোখে দিবারাত্রির কাজল
ক্ষুধার্ত কুকুরের নির্ঘুম দৌরাত্ম্য 
নীলনীল নক্ষত্রের শরীর করে দেয়  বিক্ষত- বিবস্ত্র 
কমলা চিলের চোখে ঘুমন্ত ভীরু সুক্তি   
চুপিচুপি নদীর জলে অকারণ আত্মাহুতি দেয়
বুনোহাঁস পালকের নিচে নদীকে লুকোয় 
নিজেকে হারায় বনের ভেতর ঝুলে থাকা
বিধবা চাঁদের রোদনভরা বিধ্বস্ত শরীরে!
ততক্ষণে নক্ষত্র রোদের জলে
বরফ সাদা বুনো সারসের ডানার নিচে 
জীবনের ওম খুঁজে 
নেশাগ্রস্ত আলোর জীবন্ত লাশের টানে
আজন্ম মৃত্যুর সাথে মৃত্যুর মতো মিশে যেতে চায়!

মুতাকাব্বির মাসুদ। সিলেট