অটোয়া, শনিবার ২৭ নভেম্বর, ২০২১
গ্লোবাল ওয়ার্মিং - শঙ্কর নাথ প্রামাণিক

মরা শিল্প চাই, নগর চাই ----
কারখানার চিমনি দিয়ে
গল গল করে ধোঁয়া
বেরোতে দেখে ভাবি,
সভত্যাটা এগিয়ে চলেছে
ওই ধোয়ার গতি পথ ধরেই।

কিন্তু ভুলে যাই
মাটি সরে যাচ্ছে
পায়ের তোলা থেকেই।
কার্বনের অক্সাইড গুলো, গ্রাস করছে
গোটা পৃথিবীটা কে।
 সভত্যার পর্দায় ঢাকা
চোখ দুটো দিয়ে
আমরা কিছুই পাইনা দেখতে।

স্বাস কষ্টে বুকটা চেপে এলে,
ডাক্তার বলে ---
ফাঁকা হাওয়ায় ঘুরতে।
কিন্তু কোথায় পাবো
সেই শুদ্ধ বাতাস?
যা বুকের আলভিওলাইয়ের
বুজে যাওয়া মুখগুলো
দেবে খুলে।
ক্রমশঃ বেড়ে যাওয়া
গ্রিন হাউস গ্যাস গুলো ,
টেনে রাখছে সূর্যের আলো।
বাড়িয়ে তুলছে পৃথিবীর উষ্ণতা ----
খুব ধীরে ধীরে।
গলছে পাহাড় চূড়ার বরফ ----
বাড়ছে সমুদ্রের জলতল,
অতি সন্তর্পনে।
কলকাতা টাও বুঝি আর বাঁচবে না;
যাবে সমুদ্রের অতল তলে।

শীতটা জাকিয়ে বসে না আর আগের মতো ----
গরম টাও হয়ে উঠেছে
খুবই অসহ্য,
শরৎ - বসন্তের স্নিগ্ধতাও
আজ বুঝি এই হাওয়াতেই
হয়েছে বিলীন।
কাটা গাছগুলোর
হাহাকার টাও
ঢেকে দিয়েছে
ঐ,
ঐ গ্লোবাল ওয়ার্মিং।

শঙ্কর নাথ প্রামাণিক
মালদা, পশ্চিমবঙ্গ

(প্রকাশিত লেখা পড়ার পাশাপাশি আমাদের পত্রিকাতে গুগল প্রদত্ত বিজ্ঞাপনের লিংক এ ক্লিক করে আপনার পছন্দের জিনিসটি খুঁজে নিতে পারেন)