অটোয়া, শনিবার ২৭ নভেম্বর, ২০২১
সিদ্দিকা ফেরদৌস তরু-র দু'টি কবিতা

সুখ
মানুষের মাঝে নেই আগের মতো 
সেই ভালোবাসার অনুভূতি, 
সহসাই সন্দেহ, পরশ্রীকাতরতা
নেই কোনো শান্তি।
লোভ লালসা বড়ো হবার প্রতিযোগিতার 
দৌড়ে রয়েছে সবাই,
কর্কশ নিষ্ঠুর মানুষের আচরণ 
আদিযুগ ফিরছে হামেশাই। 
ভালোবাসার বন্ধনে ধীমান মানুষ 
রয়েছিলো হামেশা আবদ্ধ, 
কোন্দল, দন্ধ মতের অমিল
সুখ নেই শুন্য আদিষ্ট। 
জীবনে ভরে গেছে কালো আঁধিয়ার, 
একটু ভালোবাসা সুখের তরে 
হ্নদয়টা করছে হাহাকার। 

সেই ছেলেটি
প্রতিদিন যাওয়া আসার পথে
একটি ছেলে ঢাকির্ভতি ফলমূল নিয়ে
বসে থাকে রাস্তার কিনারায়,
কখন আসবে ক্রেতা বিক্রি হবে সেই আশায়।
চোখে মুখে তার ক্লান্তিভাব মনটি ভীষণ ভার,
বিক্রি না হলে জুটবেনা পরিবারের আহার।
কত স্বপ্ন চোখেমুখে হবে ভবিষ্যৎ অফিসার,
দিন আনে,দিন খায় ভাবনাই কেবল সার।
যার জীবন তমস্যায় ভরা নেই কোন আলো,
এভাবেই যাবে কেটে জীবন, হবেনা কিছু ভালো।
বিক্রির ফাঁকে ফাঁকে তার মন হয়ে পড়ে উদাস,
স্কুলগামী ছেলেদের দেখলে হয় খুব আফসোস।
এলোমেলো ভাবনায় কখন যে বেলা পরে যায় হয় আধাঁর,
তার উপর র্নিভর করে য়ে, পুরো সংসার।
তারপরেও মনের ভিতর উঁকি দেয় নতুন দিনের স্বপ্ন,
হয়তোবা একদিন সেই ছেলেটির স্বপ্নগুলো হবে র্পূণ।

সিদ্দিকা ফেরদৌস তরু
গাইবান্ধা, বাংলাদেশ।