অটোয়া, শুক্রবার ২০ মে, ২০২২
কাজল দত্ত'র দু'টি কবিতা

অলস
লস দুপুরের পড়ন্ত বেলা, খোলা 
জানলায় মিঠে কড়া রোদ্দুর,
আড়মোড়া কাটা অলস বিছানায় এলিয়ে
পড়া শরীর শীতের বুকের উপর।

অলস ধূসর গোধূলি পরে কুলায়
ফেরে পাখি মহানন্দে,
অলস নদী বহে ধীরে,ভাসায়
তরণী ভাটিয়ালি ছন্দে।

অলস পায়ে নামে সন্ধ্যা তখন,ধরণীর
কোলে রাখালিয়া সুরে,
গোধূলির রঙে রাঙা একলা বিকেল
উদাস বাউল মেঠো সুরে।

ক্লান্ত রাতের শহর অলস নিদ্রায়
নীরবতা ভাঙে নক্তচরের ডাকে,
নিঝুম রাতের বুকে একলা কবি,খুঁজে
বেড়ায় তার প্রিয় কবিতাকে।

আগের মতো
ষাঢ়ের ধারার মতো এসেছো
হৃদয়ের মল্লিকা বনে,
শ্রাবণের ধারার মতো ঝরেছ
লাজুক অভিমানে।

আষাঢ়ের মেঘ হয়ে ভেসেছ
আমার নীল গগনে,
সুখের ধারায় নেমেছ তুমি
আমার সুখ শ্রাবণে।

রিমিঝিমি সুরে বেধেছো গান
আমার সবুজ বিতানে,
মেঘমল্লার তানে গেয়েছ সে
গান হৃদয় কাননে।

আষাঢ় ধারায় এসেছ সেদিন
আমার মনের কোণে,
শ্রাবণ ধারায় ঝরেছ সেদিন
অতি সংগোপনে।

আষাঢ় এখন ঝরায় ধারা
বেসুরো ছন্দ পতনে,
আগের মতো ঝরে না শাওন
তোমার বিহনে।

কাজল দত্ত
বসিরহাট, উত্তর ২৪পরগনা
পশ্চিমবঙ্গ