অটোয়া, রবিবার ৪ জুন, ২০২৩
বিশ্বজিৎ কর -এর দুটো কবিতা

আমার মৌসুমী বাতাস 
মি শ্রাবণ-মেঘে ভাসতে চাই,
মেঘ আমায় সঙ্গ দেয় না!
মেঘকে মাঝে মাঝে জাপটে ধরি,
সোহাগে,আদরে ওকে বলি-
এই মেঘ,তুমি কি বৃষ্টি হবে না!!
অপলক দৃষ্টিতে চেয়ে থাকে আমার দিকে-কেমন যেন এক অসহায়তা!
সুপ্ত ভালবাসা ঠিকরে বেরিয়ে আসতে চায়,শঙ্কায় মাথা নত করে!
আমার এই আকাঙখার মেঘগুলো হৃদয় আকাশে ভেসে ভেসে বেড়ায়!
মৌসুমী বাতাস আমাকে স্বস্তি দেয়,
এক অপার শান্তি-
চিরন্তন প্রেমের সার্থক রুপ!
বাতাস আমি সারা গায়ে মেখে নিই,
বাতাসের চুম্বনে আমি শিহরিত হই-
ওগো মৌসুমী বাতাস,
তুমি আমারই থেকে যাও!
শ্রাবণ-মেঘকে সেদিন বললাম,
ক্ষতিকর ঝড় থেকে আমাকে বাঁচাও-
তুমি বৃষ্টি হয়ে আমার পাশবতাকে ধুয়ে দাও,
আমার যে মৌসুমী বাতাস আছে!
এই তো মানসিক তৃপ্তি!

এই শুনছো! 
বুও একাকীত্ব গ্রাস করবে-
তোমার গন্ধ না পেয়ে,
বড় আবেগময় এই গন্ধ!
একাকীত্বের বাতাবরণে তোমাকে দেখব,মনের আয়নায়!
তুমি বুঝতেই পারবে না-
এক হৃদয় উন্মাদসম আচরণ করবে!
একটু যদি নিরালা পাও,
কিংবা-
কোন ঝরাপাতার দেখা পাও,
নজরবন্দী করে রেখো, আমাকে!
কিছু সময়ের জন্য!
এই শুনছো...

বিশ্বজিৎ কর
কলকাতা, পশ্চিমবঙ্গ