অটোয়া, সোমবার ২৩ মে, ২০২২
দু’টি কবিতা – চৈতালী রায়

আমি অন্য এক কুন্তী

তোমার বিবস্বত-পৌরুষে 
চাই না আমি আর এক কুন্তী হতে---
শিখব না কিছুতেই,কোনো দূর্বাসার মন্ত্র আমি।
আমার নারীত্বের তেজ,কোনো সেবার যূপে,
করবে না উৎসর্গ কোনো ন্যায় নীতি ধর্ম।
সতীত্বের মর্ম কথার ---কোনো পৌরুষেই
লিখতে দেব না আমি ---অন্য ইতিহাস।

চৌর্য বৃত্তি তেও আমি চাঁদ হবো না----
জানি আমি,তোমার তেজের দীপ্তি পারে নি
কোনোদিন ঢাকতে ও চাঁদের কলঙ্ক।
আমি ভাসাবো না কৌন্তেয় ----তমসা সলিলে
আমি ---পাণ্ডুর এই সংসারে নিজেই জ্বালবো
এক অগ্নিশিখা।

প্রিয়তম 

তোমার ভালোবাসার কি নাম দেবো বলতো?
পাগলামি?
তোমার চোখের নাম?গভীরতা?
তোমার হৃদয়ের নাম?জলধি উচ্ছ্বাস?
তোমার মনের কি নাম দিই বলতো?ছেলেমানুষ?
আর তোমার কথার নাম?প্লাবন?

এমন কত নাম আমি রেখেছি যত্ন করে
তুমি জানো?জানো না!
তোমার চোখের আর একটা নাম পেয়েছি জানো?
কি? মুক্তি!!
কাল তোমার চোখে আমি যেন বন্ধন-হারা হলাম,
তোমার অন্তরের একটার পর একটা ঢেউ
সামলে উঠলাম।
আমি এখন সৈকতে দাঁড়িয়ে আছি,
বলতো সৈকত আমি কাকে বলি?
সে তো অপেক্ষা!তাও বুঝলে না?
তোমার নাম কি রেখেছি বলতো?
জানতে চাইছো?
বলবোই না।

চৈতালী রায়
কলকাতা, ইন্ডিয়া।