অটোয়া, শনিবার ১৬ অক্টোবর, ২০২১
অবিনাশী শোক গুলো - ফরিদ তালুকদার

শোক গুলো ঝরে না!

কতকিছু ঝরে যায় 
কেবল—
অবিনাশী শোক গুলো ঝরে না!

কতো শীত এলো গেলো, কতো ঝঞ্ঝা,  বিক্ষুব্ধ পরিসর…
পাতা ঝরে ঝরে মহীরুহ হয়ে গেলো কতো বৃক্ষের বাহার
শুধু—
শোক গুলোই রয়ে গেলো জড়িয়ে এই রাতের আঁধার!

বিষণ্ণ দাওয়ার বুকে জমা রেখে মায়ার শেষ টান 
দেশান্তরী হলো কতো গৃহীকুল
প্রবাহ শুকিয়ে প্রমত্তা কতো নদী, হয়ে গেলো বিরহী আকুল
সবকিছু ঝরে যায়, সবকিছু খসে পড়ে, বোধ আর অবোধের ব্যবধান
অবিনাশী শোক গুলো--- 
কভু কেন ঝরে না!

তমসের শরীর বেয়ে ঝরে বিহ্বল জোছনার ঘ্রাণ
পাপড়িরা ঝরে—
বৃন্তের উদাসী দৃষ্টিতে রেখে সহসা আর্তনাদ, 
খোঁপার কাঁটা গুলো খসে পড়ে একে একে  
আলুথালু  বিধবার খোলা চুলে—
রাতভর ঝরে পোয়াতি মেঘের হাহাকার!

শুধু ঝরে আর ঝরে---

মূল্যবোধ ঝরে শহর গলির আনাচকানাচে, 
বুটের নীচে, ক্ষমতার সংসদে প্রহসনের নিদারুণ খেলায়

রাত জাগা পাখি দেখে, সভ্যতার ডাস্টবিনে,  
নিভৃতে কেমন ঝরে পড়ে কামনার গোপন ফসল!

সব ঝরে
ঝরে  যায় 
কেবল—
ধূসর নরম শোক গুলো কেন ঝরে না, কেন ঝরে না!---
রাতের এই চৌকাঠে ঝুলে থাকা
অবিনাশী শোক গুলো কোনদিন—
কেন ঝরে না
কেন মরে না!!

ফরিদ তালুকদার। কানাডা