অটোয়া, শনিবার ১৬ অক্টোবর, ২০২১
প্রবীর রঞ্জন মণ্ডল এর দু'টি কবিতা

আত্মভোলা
হেঁটে যাই পথ
সবল ছায়ার হাতের ছোঁয়ায় ছোঁয়ায়;
দূরে দেখি এক প্রত‍্যুষ গাছ
মাথা নুয়ে দেয় পায়ে 
এখনো কী আমার নতুন স্বপ্ন 
অমল বটের চ্ছায়ে!
মাথা তুলে ওই কুর্নিশ জানায় 
সাদা ফুল হাসে কচুরিপানায় 
প্রজাপতি ওই রঙের বাহার
বসল  এসে গায়ে।
তবে তাই হোক,তাই ই হোক 
হেঁটে চলে যাব বহুপথ
চশমাটা রাখি বুকের কাছে 
চোখটাকে রাখি জানালা খোলা।
আত্মরতির সুখ ভুলে থাকি
অমল  আলো বুকে চেপে রাখি
আমি যে আত্মভোলা।

হেঁটে যেতে পারি 
যে কথা পায়ের উপর দাঁড়াতে পারে না
সে কথা কথাই না,
ও স্থির হয়ে দাঁড়ালেই
হাঁটিয়ে দেব বাধ্য শিশুর মতো;
একটা স্থির বস্তুকেও হাঁটাতে পারি।

কাব‍্যসত্তা বুকে জমা রাখিনি
কারো চাওয়া না চাওয়ায় 
আমি কবি হয়ে উঠিনি ;
কলমের আগা ধরে যেন হেঁটে যেতে পারি 
বহু পথ,বহুদূরে জীবনের শেষদিন পযর্ন্ত।

তারপর না হয় লাঙলের ফলায়
কলমটা গুঁজে দিয়ে বলব 
তুমি তুলে নাও আমার দায়ভার ;
একটু অবকাশ যাপন করি
রুদ্ধ ঘরের মধ্যে,আগুন জ্বেলে।

প্রবীর রঞ্জন মণ্ডল
দঃ ২৪ পরগনা
পশ্চিমবঙ্গ,ভারত