অটোয়া, সোমবার ২৩ মে, ২০২২
প্রতিবাদের মিছিল - রাকিবুল হাসান রাকিব

মাদের হয় বাঁচতে দাও; না হয়-আমাদের মরতে দাও।
আমদের আর কষ্ট দিও না; আর সহ্য হয় না।।
আর কতদিন থাকব অনাহারে; অভাবের অভিযোগ ঘরে।
পেটে ক্ষুধা, খাবার নেই, মাথায় তৈল নেই, সংসারে।। 

তোমাদের লকডাউন মানতে হয়; আইসোলেসনে থাকতে হয়।
কাশি হলে, হাঁচি হলে, গলা ব্যাথা তাও হয়।।
তোমরা করে দাও নিয়ম; তোমরা করে দাও  অনিয়ম। 
আমাদের ক্ষুধা মেটানোর জন্য করতে হয়; নিয়মকে অনিয়ম। 

তোমাদের আছে ঘরে; গোলাভরা ধান, ভারা ভারা টাকা। 
আমাদের কি আছে; দিনমজুরি আর কষ্ট ছাড়া।। 
আমাদের ভয় নেই মৃত্যুর; আমাদের ভয় নেই কোনো কিছুর।
আমাদের কষ্ট শুধু, কেন বেঁচে আছি না মরে এত কষ্ট সবকিছুর।। 

তোমাদের মতো আমরা ঘরে থাকতে চাই। 
লকডাউন কি বা আইসোলেশনে থাকতে চাই।। 
কিন্তু সংসারের অভাব যাবে কবে সংসারে।
সারাদিন নিরব নির্যাতনে ক্লান্তিকাল কাটে অত্যাচারে।।

কাছে কি দূরে খবরের কাগজে কি বা ইন্টারনেটে।
আমাদের কাছে মৃত্যুর খবর আসে; চোখের সামনে।।
আমাদের ভয় হয়, তবু কেটে যায়, পেটের ক্ষুধায়।
মৃত্যুর ভয় কেটে যায়, তাই খাবারের দায়ে চলে যায়।। 

দিনের পর দিন দৈনিক কি বা নিত্যদিন মানুষ আক্রান্ত রোগে।
মানুষের মিছিলে চলে আসে, ঢলে পড়ে মৃত্যুর মিছিলে।। 
দিন বাড়ছে রোগী, চিকিৎসকরা মৃত্যুর ঝুঁকি নিয়ে। 
মানুষের পেছনে অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছে।। 

যাঁরা আছে সমাজে মানুষের সেবা করে ক্লান্তিকালে।
তোমরা যাঁরা অমানুষ সেই ত্রাণ চুরি করে।।
নিজের বাস ভবনে বলো কি'বা গোডাউনে।
অসহায় মানুষ বাঁচবে কিভাবে, দুর্ভিক্ষ আসছে নেমে।। 

রাকিবুল হাসান রাকিব। কক্সবাজার, বাংলাদেশ