অটোয়া, শুক্রবার ২০ মে, ২০২২
স্বপ্নের বৃষ্টিতে ভিজতে ভিজতে - সুনির্মল বসু

কাশ জুড়ে মেঘ, সারি সারি তাল সুপারি গাছ নিস্পন্দ দাঁড়িয়ে, দূরে কোনো পাহাড়ের ঢালে বৃষ্টি নেমেছে,
 টিপ টিপ জলের সুরেলা সঙ্গীত,
আমি ভিজে যাচ্ছি, কেবলই ভিজে যাচ্ছি,
কেউ জানে না, কবে থেকে আমি উতরোল বৃষ্টিতে
ভিজে যাচ্ছি, মাঠে ঘাটে থৈ থৈ জল,
বর্ষার মধ্যে দৃশ্যপটগুলো ভেসে উঠছে,
পদ্মপাতায় টুপটুপ জলের প্রস্রবণ, ডাটা গাছের মাথায় ভিজছে লাল ঠোঁট টিয়া পাখি, গাছ থেকে কুশি আম ঝরে পড়ছে, সবুজ মাঠ পেরিয়ে টোকা মাথায় কৃষক বধূ ঘরে ফিরছে, ঝিলের জলে তিনটি বালক স্নানে নেমেছে, বর্ষার জলে পুকুর থেকে মাছ বেরিয়ে যাচ্ছে,

স্বপ্নে দেখি, বাবা মা সবুজ মাঠ পেরিয়ে ভিজে ভিজে  বাড়িতে এসেছেন,
তোরা সবাই কেমন আছিস, দেখতে এলাম,

যখন রাত জেগে লিখি, তখন স্পষ্ট মনে হয়,
মা পাশে দাঁড়িয়ে, বাবু, শুয়ে পড়, এখন অনেক রাত,

স্বপ্নে দেখি, শালিক পাখির বাচ্চা হতে কাকু,
বাবু, বৃষ্টিতে ভিজে গেছে, একে বাঁচাতে হবে,

কদম ফুলের রেণু ঝরে পড়ছিল, চারদিকে অজস্র জলের সম্ভার, দ্বীপের মধ্যে পলাশ বন লালে লাল,

আমি বৃষ্টিতে ভিজছি, আমি স্বপ্নে হাঁটছি,
মাঝে মাঝে স্বপ্নে দেখি, ভাই পুকুরে পড়ে গেছে,
আমি চেঁচিয়ে মাকে ডাকছি, গলা দিয়ে স্বর বেরোচ্ছে না,

স্বপ্নের বৃষ্টি আমার সব টালমাটাল করে দিচ্ছে,
স্বপ্নের বৃষ্টির আরম্ভ আছে, শেষ নেই,

স্বপ্নে দেখছি, কোনো ধর্ম স্থানে আমি পথের পাশে মাটিতে শুয়ে আছি,এক সম্ভ্রান্ত ভদ্রমহিলা গাড়ি থেকে নেমে আমাকে মাড়িয়ে গেলেন,
বললেন, সরি,
তাকিয়ে দেখি, নীলাঞ্জনা।

স্বপ্নগুলো আসার সময় অসময় নেই, স্বপ্নের জন্য আমার কোনো দিন রাত্রি লাগে না,
বয়স হয়েছে তো, বড় ভয় হয়,

স্বপ্নের এই স্মৃতিগুলো আমি কক্ষনো হারাতে চাইনা,
জেগে ঘুমিয়ে কত স্বপ্ন দেখি,তবু স্বপ্নের বৃষ্টিতে ভিজতে আমার বেশ লাগে,
জীবনে অনেক কিছু হারিয়েছি,
এটুকু হারাতে আমি রাজি নই।

সুনির্মল বসু। দক্ষিণ 24 পরগনা