অটোয়া, বুধবার ১৯ জুন, ২০২৪
বিশ্বাসের হাত বদল - দেওয়ান সেলিম চৌধুরী

কদা কিছু না বুঝে ধর্ম্মের কাছে, পৃথিবী ছিল স্থির।
এখানে রয়েছে কত প্রিয়প্রাণ, মহামানবের ভিড়।
সেই পৃথিবীকে আলো দিতে তাই সূর্যও অস্থির।
দিনের শেষে কাঙাল বেশে, সূর্য ফিরিতো আরশের নীচে
সমস্ত রাতের বন্দনা শেষে, ফিরে আসা ধরণীতে
নূতন করিয়া শক্তি ঢালিয়া, পৃথিবীকে আলো দিতে।
প্রাণের লাগি পৃথিবী বানায়ে, বিধাতা করিলো দান,
সেই সম্মানে পৃথিবী স্থির, বাকী সব চলমান।
অনেক দিনের পরে ধীরে ধীরে শান্ত পায়ে, এলো বিজ্ঞান
অন্ধকার দু’হাতে ঠেলে স্পষ্ট দেখে, পৃথিবীও চলমান।
মুহূর্ত সাথে হুংকার ছেড়ে জাগিয়া উঠিলো ধর্ম্মের দারোয়ান
বিজ্ঞানী নয়তো তারা, ধর্মহারা সাক্ষাত শয়তান,
পৃথিবী ঘুরায়ে করিতে চায়, ধর্ম্মের অপমান।
সত্যের লাগি কত মহাপ্রাণ, জীবন করিলো দান
নতজানু হয়ে কত বিজ্ঞানী সহিলো যে অপমান।
ব্রুনো মরিলো আগুণে পুড়িয়া, সত্যেরে দিলো প্রাণ
সত্যের লাগি জীবন দিয়ে, মিথ্যারে করিলো ম্লান।
আজ নিজেরে করিতে মহিয়ান, ধর্ম্ম নিজেই খুঁজিছে বিজ্ঞান,
কার ধর্ম্ম কত সত্য, বিজ্ঞানই তার মান।
বিজ্ঞান চলে আপন লয়ে, মানুষের হয়ে, শুধু জ্ঞান করিছে দান
জ্ঞানের মাঝেই সত্য লুকানো, সেই সত্যেরই সন্ধান
ধর্ম্ম আনেনি মানুষের মুক্তি, মুক্তি এনেছে জ্ঞান।

দেওয়ান সেলিম চৌধুরী
অটোয়া, কানাডা