অটোয়া, বুধবার ১৯ জুন, ২০২৪
নদীর সাথে সখ্যতা - ফারজানা পারভীন

ও,,মেয়ে কি নাম তোমার? আমার পাড়ে এসে যাও চলে কিছু না বলে,,,
তোমার পথ চেয়ে আছি সেই আজানা কাল থেকে।
আমার জলে হাতটি ভিজাও মনের আনন্দে 
দেওনা ছোঁয়া, দেওনা ধরা করো না তো আলিঙ্গন।

আমার স্রোতে মুগ্ধ হয়ে ভেসে যাও নায়ে
বইঠাতে যখন মারো টান বুকটা হয় খান খান
কখন যেনো টান মেরে কোথা যাও চলে
একটু ফিরে তাকাও কন্যা কিছু কথা যাও নিয়ে।

তোমায় যদি না পাই ফিরে জ্বলবো জীবনভর 
দখিনা বাতাস পানির কলকল ছলছল স্বর
এলো চুলে দেখি তোমায় বাতাস তুই ধীরে চল
শাড়ির অঞ্চল উড়ে চলে লাগছে মধুময়। 

ওগো আমার  মানসী, কোন পানে যাও চলি
স্রোতে আমার হাতটি রাখো আমি কিছু বলি 
অশান্ত স্রোতে চলো ভেসে যাই দু কূল ছাপি 
ঢেউ ভেঙে করবো  দুজনে আনন্দে জলকেলি। 

এতো স্রোত এতো হাওয়া এতো কল কল ছলছল 
আমার সবই নিয়ে গেলে নিজেকে  করলে ধন্য 
শাড়ির কুচিতে শুকে দেখো আমারি স্রোতের গন্ধ 
তোমার কাছে জানি আছে পাগল করা মন্ত্র। 

হঠাৎ এসে আমার জোয়ারে গা ভাসালে কেন তুমি? 
ছলাৎ ছলাৎ জল তরঙ্গে ভিজালে  অঙ্গ খানি , 
একবার ফিরে চাও আমি যে  বয়ে চলা নদী 
কোন পারে বাস তোমার কি যেনো নাম খানি? 

ফারজানা পারভীন
বাংলাদেশ