অটোয়া, সোমবার ২২ জুলাই, ২০১৯
"প্রিয় পাগলি"- এম.ডি.মুনিম

তুমি কেমন আছ ? আশিস নিয়ো। জানি
প্রাচুর্যের বেড়া জালে তুমি আবদ্ধ, শিক্ত হচ্ছ দামিদামি সব অলংকারের মায়াবী কোমল ছোঁয়ায়। আল্লাহর অসীম কৃপা নিপুণ হাতে কি কারুকার্যে গড়েছেন তোমায়।

কী অপূর্ব দু-চোখ ফুলের পাঁপড়ির মতো ঝলঝল করা মায়াবী আঁকুতি ঘেরা , বাতাসে আউলা চুলের ঢেউ খেলানো সুবাস এক অস্থির মুগ্ধ নেশার মতো আছন্ন করে, কী অপরূপ নিঃশ্বাস বন্ধ করা চাহুনী, দেখলেই মনে হয় শ্রেষ্ঠ কারিঘরের অপূর্ব সৃষ্টি। যার ভাঁজে ভাঁজে আঁটকে পড়ে জগতের সকল সুন্দর্য্য পিপাসুর দৃষ্টি।

প্রতি নিয়ত তোমার পাওয়া সব চাওয়া পরিপূর্ণ করে তুলেছেন আর তুমি সুখের
ঢেঁকুর তুলছ বারে বারে,জানি অভাব
কখনো ছোঁয়ে যায় না। কথা বলার বা
সঙ্গ দেয়ার লোকের অভাব নেই এখন তোমার তারপরও জানতে চাইছি তুমি কেমন দিন কাটাচ্ছ, তোমার সাঁজানো জগৎ নিয়ে ?

শুনতে অবাক লাগলেও সরাসরি কথা হয় নি একবারও, দেখেছি তোমায় দূর থেকে কথা বলার শত আঁকুতি থাকলেও কথা বলি নি, পাছে নিষেধ করে দেয়ার ভয়ে। তোমার দু-একটি কথা শুনেছি তাও বিরক্তি ভরা সুরে, দুঃখিত শুনি নি। তোমার হাতের লিখা পড়েছি মাত্র, এই যা-
তাতে লিখেছিলে
* কে আপনি ?
* কি জন্যে এতো বিরক্ত করছেন ?
* অপরিচিত কারো সাথে কথা বলা কি উচিত ?
* আপনার এমন sms করা ঠিক না ইত্যাদি ইত্যাদি।।

এদিকে আমাকে দেখো, সে দিনের পর থেকে রোজ রোজ এখনো তোমার অপেক্ষা করি, তোমাকে নিয়ে স্বপ্ন দেখি। ঘুম ভাংলে ভোরে
চোখ মুছে মুছে দূর্বা ঘাসের শিশির দুলানো পথে শিউলি কুঁড়োই, মালা গেঁতে তোমার চুলের খোঁপা, গলা, হাত সব সাঁজাবো বলে কতো কল্পনা করি। তুমি না বল্লেও তোমায় নিয়ে ভাবি, কল্পনায় তোমার ছবি আঁকি, বিরক্ত করি বারে বারে। জানো স্বপ্নগুলো উন্মাদ হয়ে ঘুরে তোমার চারিপাশে, কখনো
এতোটাই স্থবির হয়ে যাই খেয়াল থাকে
না নিঃশ্বাস নিচ্ছি কি না ? যখন কষ্ট হয় বুঝতে পারি নিঃশ্বাস নিতে ভুলে গেছি।

কতো স্বপ্ন তোমাকে নিয়ে, পাগল নাহ্ ? দিন শেষে ক্লান্ত শরীর এলিয়ে দেবো তোমার কোলে, তুমি ছোট্ট শিশুর মতো আদরে আদরে ভুলিয়ে দেবে দিনের ক্লান্তি। মাথায় হাত ভুলিয়ে গল্প বলে ঘুম পাড়াবে আমায়।
আমিও তোমার চোখে চোখ রেখে হারিয়ে যাবো গভীর নিদ্রায়। জড়িয়ে থাকবো তোমার স্বপ্ন, স্বপ্নিল করে তুলবো তোমার চাওয়া।

মাঝে মাঝে ঘুরতে যাব পাহাড় কিংবা সমুদ্রে, দেখো জানাই তো হল না। তোমার পাহাড় নাকি সমুদ্র পছন্দ ? আমার অবশ্য দুটোই। পাহাড়েরর ঢাল বেয়ে ঝর্ণার এঁকেবেঁকে নেমে যাওয়া দৃশ্য, পাহাড়ে বসে উত্তাল সাগরের ঢেউ দেখা আমার খুব পছন্দ।

তুমি দেখো একবার নিয়ে যাবো তোমায়
আমার স্বপ্নের পাহাড়ে, যেখানে অজশ্র ঝর্ণা রয়েছে। তোমাকে নিয়ে পাহাড়ের ঢালে ঝর্ণায় পা ডুবিয়ে সাগরের উন্মাদ ঢেউ গুলো
দেখাবো। ক্ষিপ্ত ঢেউ মাঝেমাঝে তোমার পা অবদি পৌঁছবে। দেখো তোমার মনের এ উচ্ছ্বাস প্রকৃতির হিমেল হাওয়ার সাথে মিশে একাকার হয়ে যাবে। তখন রাগ নয়,অভিমান নয়, ভালোবেসে দু-হাত পেতে বলবে বন্ধু আমাকে ক্ষমা করো।

সিলেট, বাংলাদেশ।