অটোয়া, শনিবার ২১ মে, ২০২২
সুজিত রেজ-এর দু’টি কবিতা

পার্ক
পার্কে পার্কে আঙুরের ছেলেমেয়ে
বিনিসুতোয় মালা গাঁথা হয় এখানে
ঝিঁঝিঁ ডাকার আগেই নেমে  
                         আসে খাজুরাহোর সন্ধ্যা
বোতলে পোরা বসন্তবৌরি শিস্ দেয়
চোখের পাতায় দোল খায় পিঙ্কি রঙের খোয়াব
আলো ও আলেয়ার সখ্যলীলায়
বারোয়ারি দুর্গা প্রতিমার মতো 
                       মুখ বদলে-বদলে যায়
সারাদিন চুপ থাকার পর 
       সাঁঝাল আলোয় মৌন পাহাড় কথা বলে
কমলালেবুর খোসা ছাড়াতে গিয়ে
              অর্ধেক রস নষ্ট করে অনামিকা 
অলীক উল্লাসে ভাঙা হয় বীজধা
কমা-কোলন সহ্য হয় না---- দাঁড়ি দূর ছাড়

চিঠি
তুমি কেন চিঠি লেখো না অচিরা, অকাতরে
রিলকে পড়ে ভালো লাগার কী কী কারণ----
রাঁবো কেন রাত্রি লেখে নীল চাদরে?
তিমির তারার আলোকমালায় শুদ্ধিকরণ।

তুমি কেন চিঠি লেখো না সোহিনী, পোস্টকার্ড
গানের সুরে ফোসকা জ্বলন গণিতশলায়;
নীরব ছুটির তিরে সন্তপ্ত কিয়ের্কেগার্ড
নির্বাসনে যাবে দেখো ঠিক জৈন গুহায়।

তুমি কেন চিঠি লেখো না দুর্গা, কে জানে
হলুদ রঙের পরুল ফুলের গল্পকথন;
বাবলা গাছের কাঁটা জড়িয়ে সংসার-টানে
সর্বজয়ার চোখের জলে গঙ্গাদূষণ।

সুজিত রেজ। পশ্চিমবঙ্গ