অটোয়া, সোমবার ২৩ মে, ২০২২
পাখি - হরেকৃষ্ণ দে

কটা গাছ হওয়ার পরিকল্পনা অনেক দিন ধরেই মাথা কুপিয়ে পুঁতে রেখেছিলাম
তার পর আর কোনো তেমনভাবে তরারকি করার খেয়াল ছিল না

হঠাৎ সেদিন একটা পাখি বাসা বাঁধার জন্য
আমার মাথা জুড়ে বসে পড়ল,
আমার সেই মাথায় পুঁতে রাখা গাছের পরিকল্পনা আজ সবুজ দুটো পাতা মেলে পাখিটাকে বসতে দিল
ধীরে ধীরে পাখির আস্তানার জন্য 
একটা গাছ হয়ে উঠতে লাগলাম
আর পাখির সাথে দিব্যি সংসারে মজে উঠার স্বপ্নে পাগল হতে লাগলাম

আমার গাছশরীরের সারা ডালে পাখির চঞ্চল ডানার বাতাস ভরে উঠতে লাগল
আর আমি এক একটা নতুন ভোরের প্রার্থনা করতে থাকলাম
কারণ আমার মাথায় পাখির অবুঝ কুজন
থেকে খসে পড়তে থাকল এক নতুন হৃৎপিণ্ড৷

চঞ্চুর মত খুপে নেয়া দানায় আমি নিজেকে হারিয়ে ফেলতে ফেলতে
বিশাল একটা বনরাজির ভেতর 
পাখিদের আনন্দ লিখতে থাকলাম

পাখির ডানায় নিঃশব্দ অন্ধকারে
একলা পথের ভিখিরি হয়ে সমস্ত আমিত্বের
জামবাটি শূন্য করে বিলীন হয়ে যেতেই
একটা গাছের পরিকল্পনায় মশগুল হয়ে
পাখির মত মুক্ত মনে উড়তে চাইলাম---

বটের ছায়া গিলে বটফলের লাল রঙে রঙিন
লালসার খিদে মেটাতে...

হরেকৃষ্ণ দে 
গ্রাম পোঃপিড়রাবনী
জেলাঃ বাঁকুড়া 
পশ্চিমবঙ্গ