অটোয়া, বৃহস্পতিবার ১৪ নভেম্বর, ২০১৯
অটোয়াতে কিংবদন্তী শিল্পী আইয়ুব বাচ্চু স্মরণে আয়োজিত কনসার্ট এক অনন্য উদাহরণ - কবির চৌধুরী

ত ১৯ শে অক্টোবর ২০১৯ স্থানীয় কার্লটন বিশ্ববিদ্যালয়ের কৈলাস মিতাল থিয়েটারে গানে গানে বাংলা ব্যান্ডসঙ্গীতের কিংবদন্তী প্রয়াত আইয়ুব বাচ্চুকে স্মরণ করা হয়। বাংলা ব্যান্ডসঙ্গীতের রাজপুত্র আইয়ুব বাচ্চুর প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত ‘ট্রিবিউট টু আইয়ুব বাচ্চু’ এই কনসার্টের আয়োজন করে অটোয়ায় বসবাসরত ‘আইয়ুব বাচ্চু ভক্ত’ একঝাক তরুণ-তরুণী। মূলতঃ আমাদের এই আরশী নগর অটোয়ার প্রিয়মুখ ডাক্তার আরেফিন কবিরের নেতৃত্বেই শহরের কিছু ব্যান্ড শিল্পীদের সম্মিলিত প্রচেষ্টার ফসল ছিল জাদুকর গিটারিস্ট হিসাবে পরিচিত ব্যান্ডশিল্পী আইয়ুব বাচ্চু স্মরণে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানটি। 

শিল্পী আইয়ুব বাচ্চুর বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করে এক মিনিট নিরবতা পালন করার পরপরই দর্শকে ভরপুর কৈলাস মিতাল থিয়েটার এর মঞ্চে অটোয়ার প্রিয় ব্যান্ডশিল্পী আরেফিন কবিরের নেতৃত্বে গানে গানে ‘ট্রিবিউট টু আইয়ুব বাচ্চু’ অনুষ্ঠানের শুরু হয়।

প্রস্তাবিত ব্যান্ডদল “অটোয়া রকস্টার” এর সদস্যবৃন্দ যথাক্রমে, ডিউক, আলিফ, ফাহদ, নাবিলা, রিজওয়ান, তুষার, সাচি এবং অতিথিশিল্পী যথাক্রমে, নার্গিস আক্তার রুবি, পিয়া ইসলাম, ইসা রেজা, পরাগ রহমান, শিশির শাহনেওয়াজ, নাসিম সাইদী, সৈয়দ রাসেল, আলিসিয়া ও গিয়াস ইকবাল সুহেল কে নিয়ে আরেফিন কবির প্রয়াত আইয়ুব বাচ্চুর গাওয়া “ঘুম ভাঙ্গা শহরে, হাসতে দেখো গাইতে দেখো, রুপালী গীটার, ফেরারী মন, সেই তারা ভরা রাতে, সুখেরই পৃথিবী, সাড়ে তিন হাত মাটি, ঘুমন্ত শহরে, নীরবে, বাংলাদেশ, গতকাল রাতে, মেয়ে, ময়না, উড়াল দিব আকাশে, মাধবী, কষ্ট পেতে ভালবাসি, চলো বদলে যাই”- এই জনপ্রিয় গানগুলো পরিবেশন করেন।



১৯ অক্টোবর ২০১৯ ‘ট্রিবিউট টু আইয়ুব বাচ্চু’ অনুষ্ঠানটি অনেকদিন অটোয়ার ‘বাচ্চু ভক্ত’দের স্মৃতিতে উজ্জ্বল হয়ে থাকবে। এদিন সন্ধ্যায় কৈলাস মিতাল থিয়েটারে, আরেফিন কবির এবং তাঁর দল শুধু গানে গানে আইয়ুব বাচ্চুকে স্মরণ করেই তাদের দায়িত্ব শেষ করেননি। এই একঝাক তরুণ সেদিন অনুষ্ঠানের টিকেট বিক্রি এবং স্পনসর থেকে সংগৃহিত প্রায় পুরো টাকাটাই (৫৫০০.০০ ডলার) অটোয়াস্থ নতুন নন প্রফিট সংগঠন “রুদ্র প্রিন্স হোপ ফাউন্ডেশন” এর তহবিলে দান করে এক অনন্য উদাহরণ সৃষ্টি করেছেন। সংগৃহিত ৫৫০০.০০ ডলারের চেকটি  “রুদ্র প্রিন্স হোপ ফাউন্ডেশন” এর পরিচালকের হাতে তুলে দেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি কানাডায় নিযুক্ত বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় রাষ্ট্রদূত মিজানুর রহমান এবং তাহার সহধর্মিনী মিসেস নিশাত রহমান।   

উল্লেখ্য যে, বাংলাদেশি কানাডিয়ান শিশু রুদ্র প্রিন্স ২০১৮ সালে মাত্র ৮ বছর বয়সে ‘আজমা’তে আক্রান্ত হয়ে মারা যায়। তারই স্মরণে মানুষের মাঝে আজমার ভয়াবহতা তুলে ধরা, রুদ্রের প্রথম স্কুলে বৃত্তি প্রদান, অটোয়া চিলড্রেন হসপিটাল এবং কানাডা আজমা রিচার্স সেন্টারে আর্থিকভাবে সহযোগিতা করার জন্য রুদ্রের মা-বাবা এবং বন্ধুরা মিলে অলাভজনক এই প্রতিষ্ঠান “রুদ্র প্রিন্স হোপ ফাউন্ডেশন” (Rudhro Prince Hope Foundation) গঠন করেছেন।

সমাজের প্রতি আমাদের দায়বদ্ধতার কথা মনে করিয়ে দেয়ার জন্য ‘ট্রিবিউট টু আইয়ুব বাচ্চু’ কনসার্ট-এর আয়োজকবৃন্দ এবং “রুদ্র প্রিন্স হোপ ফাউন্ডেশন”-এর প্রতিষ্ঠাতাদের ধন্যবাদ জানিয়ে ব্যান্ডসঙ্গীতের রাজপুত্র আইয়ুব বাচ্চুর একটি বিখ্যাত গানের মাধ্যমেই ছোট এই প্রতিবেদনটির শেষ করছি- “টাকা কড়ি ধন সম্পত্তি/ অনেক অনেক বাড়ী গাড়ি/ ঠিকানার ছরাছরি/ আমি তুমি বারাবারি/ মরলে সঙ্গে যাবেনা/ কোন কিছুই তোমার অংশিদারি/ ঠিকানা শুধু এক সমাধি/ সাড়ে তিন হাত মাটি…”

কবির চৌধুরী । অটোয়া