অটোয়া, সোমবার ২৩ মে, ২০২২
চোখ – বজলুস শহীদ

তুমি পৃথিবীকে দেখো তোমার 
দু'চোখ দিয়ে। 
গাছ, তরুলতা সবই দেখো তুমি,
ফুল দেখো পাখি দেখো, নদী সমুদ্র
লাল, নীল, বেগুনি ঘাস ফুল, 
আরো কত কী, কত রঙ, 
কিন্তু; তুমি তোমাকে দেখো না।

তোমাকে দেখে পৃথিবীর সমস্ত চোখ,
যেমন চাঁদ দেখে মেঘের আড়াল থেকে
পৃথিবীর মুখ, নেকাবের ঝালরের ফাঁকে 
সব চোখ তাকিয়ে আছে তোমার দিকে।
করম আলী, রইমুদ্দিন, তোমার
প্রতিবেশি- সালেহার মা, সবাই
কাকে দেবে ফাঁকি! 
ওদের সমস্ত চোখ তোমার উপরে, 
মনে রেখো, তোমার শুধুই দুটি চোখ
লক্ষ লক্ষ চোখ দেখছে তোমাকে।

ওদের চোখের ভাষা তুমি কি পড়তে পার?
পার না,
আকাশেরও একটা চোখ আছে
তারাদের চোখ, তার ভাষা পড়ে দেখো, 
বুকের গভীরে শুনবে কোটি মানুষের আর্তনাদ।
দেখবে তোমার দেখা চোখে অনেক রঙ
কিন্তু পৃথিবীর সমস্ত চোখে ঘৃণাভরে 
তাকিয়ে আছে,তোমার দিকে,
ওরা মানুষ, ওরা স্বপ্ন দেখছে। 

একদিন সমস্ত চোখের স্বপ্নেরা এসে
তোমাকে বলবে,
আমাদের দিকে তাকাও,
আমরা এসেছি, আল সালভাদার থেকে,
আমরা এসেছি, ফিলিস্তিন থেকে,
ইয়েমেনি শিশুদের লাশ দেখে দেখে
আমরা এসেছি, বাংলাদেশের গৃহকর্মীর
আর্ত চিৎকার থেকে।
তুমি কী এই লক্ষ চোখের ভাষা বোঝ?
তুমিত এই চোখের প্রতিবাদী উজ্জ্বল আলো দেখনি,
ঈগলের চোখ আজ বিদ্ধ হোয়েছে ওদের শরীরে,
সময় অত্যাসন্ন, হে রাজন!
সাবধান, আমরা আসছি।

বজলুস শহীদ । অটোয়া, কানাডা