অটোয়া, শুক্রবার ২০ মে, ২০২২
ওয়াজিউল হক শরীফের দু’টি কবিতা

এসো গড়ে তুলি আগামীর সভ্যতা 
হে মানব তোমাদের কেন এত অহংকার 
সমাজের বুকে মানুষ মানুষকে করছো অনাচার। 

ধর্মের নামে জ্ঞানপাপীরা করছে অত্যাচার 
সমাজ রাষ্ট্র হয়ে গেছে নির্বিকার। 

বৈষম্যের যাঁতাকলে জীবন হচ্ছে ছারখার 
জ্ঞানপাপী শকুনের দল শোষণ করছে বারবার। 

সংখ্যালঘুর অজুহাতে করছে রক্তের হোলিখেলা 
বিশ্ব মানবতা চেয়ে চেয়ে দেখে বৈষম্যের অবহেলা। 

ক্ষমতার মোড়লরা হয়ে গেছে উন্মদ 
শাসনের নামে ধ্বংস করছে নগর জনপদ 
দখল করছে সম্পদ। 

কালোবাজারি লুটেরা মাদকখোরে ভরে গেছে সমাজ 
ওদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াও গড়ে তোলো আওয়াজ। 

বৈষম্যের দেওয়াল ভেঙে আনতে হবে সাম্যবাদ
মানবতার জন্য গড়তে হবে নতুন মতবাদ। 

ভেঙে গেছে মায়ার বন্ধন একান্নবর্তির দেওয়াল
আগের মত নেই আর ভালবাসার প্রাণচঞ্চল।

দুর্নীতি দুঃশাসন অনাচারে ভরা যত জঞ্জাল 
মানুষের ভালবাসায় ভাঙ্গতে হবে 
অনাচার বৈষম্যের দেওয়াল। 

হারিয়ে গেছে মায়া মমতা ভালবাসার মানবতা 
বিশ্ব মানব এসো গড়ে তুলি আগামীর সভ্যতা। 

সেই শহরের মানুষ এখন কত অচেনা
নবগঙ্গার তীরের সেই শহর ছিল কত আপন
যেখানে কেটেছে সোনালী দিনের স্বপনীল জীবন।

গলি থেকে রাজপথ প্রিয় শহরের বুকে 
ইজিবাইক রিকশায় ভরে গেছে ব্যস্ততার কোলাহলে। 

সেখানে এখন শোভা পায় আধুনিক জীবন 
নতুনরা এখন সেলফিতে গড়েছে আপন ভুবন।

সেই শহরের বুকে সোনালী জীবনে করেছিলাম 
রাজপথ কাঁপানো মিছিল মিটিং শ্লোগান। 

সাথীদের কেউ হয়েছে সমাজপতি উকিল ডাক্তার 
জীবনযুদ্ধে পরাজিত হয়ে কেউ হয়েছে নির্বিকার।

পরিচিত আড্ডায় আর হয় না প্রাণবন্ত আলোচনা 
কাজের অজুহাতে এড়িয়ে যায় করে শুধু ছলনা।

ক্ষমতার পালাবদলে কারও হয়েছে অহংকার 
বন্ধু্ত্বের ভালবাসার নেই আর অঙ্গীকার।

ব্যবসা বানিজ্যে বন্ধুরা হয়েছে কোটিপতি 
নিজগুণে কেউ হয়েছে কর্মজীবী কিংবা সমাজপতি ।

সেই শহরের মানুষ গড়েছে নতুন জীবন 
একদিন আমিও ছিলাম তোমাদের অতি আপন।

হে মোর প্রিয় শহর তুমি যে কত আপন
চিরকাল তোমার জন্য অবিরাম কাঁদবে মোর জীবন।

সেই শহরের মানুষ এখন কত অচেনা
এভাবেই কোন একদিন হারিয়ে যাবে মোদের ঠিকানা। 

ওয়াজিউল হক শরীফ। ঢাকা, বাংলাদেশ