অটোয়া, শনিবার ২১ মে, ২০২২
উপলব্ধি - মুতাকাব্বির মাসুদ

ক পৃষ্ঠা এক কবিতা যা উপলব্ধির
লুকোনো গোছানো কর্ণারে জাগ্রত
কিন্তু স্মৃতিকাতর এ বুভুক্ষু কলমে আসেনা!
বুকের ভেতর একটা ছবি ছিল
যেমন চাঁদেরও থাকে সাঁঝের মায়া!
তেমনি বনজোছনার সোনালি চোখ-হলুদ পাতার ছায়া
রোদের দলে ভিনপাখির রোদ নিয়ে খেলা
বিলাসী বটের ছায়া-শ্রান্ত গোধূলি নিজেকে হারায়
কোনো এক কুমারী সন্ধ্যার তেলচিটে শরীরে।
সেখানেও কাঁপা কাঁপা লেমের আলোয়
তুমি দুর্বোধ্য এক অপাঠ্য কাগজের দলা
দুর্বিনীত আলোর মতো চপল চঞ্চল
নিঃসীম মৃত আঁধারে মোড়া-সে ছবি
অনেকটাই পরিচিত সেই দোল খাওয়া
ষোড়শী ধানের শীষে গ্রাম্য বালিকার মতো
লজ্জাবনত তোমার রক্তকরবী মুখ
আজ আর সামনে আসে না!
মগজের নিউরনে আলো-আঁধারের দেয়ালে টানানো অতি চেনা পোট্রের্ট!
আমি নিশ্চিত এটা তোমারই ছবি

কিন্তু মুখোমুখি হতে চায় না!
সেই মুখ প্রতিদিন চোখঝরা জলের ফোঁটায়
জলরঙে আঁকার এক অহংকারী কাকুতি
কিন্তু পারি না।
হয়তো তুমি-ই সেই প্রেম
যা চেয়ে চেয়ে ক্লান্ত আমি-পেয়েও পাই না!

মুতাকাব্বির মাসুদ । শ্রীমঙ্গল, বাংলাদেশ